রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১:০৮ পূর্বাহ্ন

জরুরী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি:
কুষ্টিয়া পোস্ট ডট কমের জন্য সারা দেশে জরুরী ভিত্তিতে বিভাগীয় প্রধান, জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা career@kushtiapost.com ইমেইল এ সিভি পাঠাতে পারেন।

তামিমের অভিষেক হাফসেঞ্চুরিতে জয় বাংলাদেশের

জয়ের টার্গেট মাত্র ১২৫ রান। টি-টোয়েন্টিতে এটি মামুলি মানের লক্ষ্য। সহজ সেই লক্ষ্য বাংলাদেশও সহজ কায়দায় জিতলো। ২৮ বল বাকি থাকতেই ৮ উইকেটে ম্যাচ জিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে বাংলাদেশ এগিয়ে গেল ১-০ তে। লো- স্কোরের এই ম্যাচে ব্যাট হাতে বাংলাদেশের নায়ক ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়ার পরীক্ষা দিতে নেমেছিলেন তানজিদ হাসান তামিম। সেই পরীক্ষায় খোলা চোখে পাশ বলা যায় তানজিদকে। কারণ অভিষেক ম্যাচেই ব্যাট হাতে চোখ জুড়ানো পারফরমেন্স তার। ৪৭ বলে অপরাজিত ৬৭ রান করে দলকে জিতিয়ে ফিরলেন এই তরুণ। জিম্বাবুয়ের ১২৫ রানের লক্ষ্য ১৫.২ ওভারে ৮ উইকেট হাতে রেখে তাড়া করেছে বাংলাদেশ। তাকে ভালো সঙ্গ দিলেন মিডলঅর্ডার ব্যাটার তাওহীদ হৃদয়। মাত্র ১৮ বল খেলে অপরাজিত রইলেন ৩৩ রানে।

তবে এই ম্যাচের সহজ লক্ষ্যের পথে ছুটতে বাংলাদেশের শুরুটা ভালো হলো না। লিটন দাস ফিরলেন মাত্র ১ রান করে। শুরুর সেই সঙ্কট কাটিয়ে উঠার আগেই বাংলাদেশ পড়লো বৃষ্টির কবলে। খেলা বন্ধ হয়ে গেল। বৃষ্টি আইনে তখনো ম্যাচ বাংলাদেশ ম্যাচে পিছিয়ে। তবে বৈশাখের বৃষ্টি বেশি সমস্যা তৈরি করলো না। বৃষ্টি থামতেই খেলা শুরু হলেই বাংলাদেশ একটু দ্রুত রান তোলার দিকে মনোযোগ দেয়। রানরেটে এগিয়ে থাকার চেষ্টা চালায়। ভাগ্যও সহায়তা করলো। বেশ কয়েকটি ক্যাচ ফেলে দিলো জিম্বাবুয়ে। সুযোগটা কাজে লাগিয়ে সামনে বাড়লো বাংলাদেশ। ১০ ওভারে স্কোরবোর্ডে জমা উঠলো ৫২। ভালো খেলতে থাকা অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ফিরলেন ২৪ বলে ২১ রান করে।

ক্যারিয়ারের প্রথম আর্ন্তজাতিক টি- টোয়েন্টি খেলতে নেমেই ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম যা খেললেন তাতে একটা বিষয় নিশ্চিত জুনের বিশ্বকাপ দলে তার জায়গা পোক্ত। অভিষেকেই হাফসেঞ্চুরি করলেন এই বাঁহাতি। মাত্র ৩৬ বলে তার হাফসেঞ্চুরি জানান দিলো এই ফরমেটে টিকে থাকার জেদ নিয়েই এসেছেন তিনি। হাফসেঞ্চুরির পর অবশ্য একটা সহজ ক্যাচ দিয়েছিলেন। কিন্তু জিম্বাবুয়ে উইকেটকিপার ক্লাইভ মাদান্দে বিশাল গ্লাভস হাতে সত্ত্বেও যে কায়দায় ক্যাচটা ছাড়লেন সেই মিস নিয়ে অনেক গবেষণা হতে পারে!

এতো সহজ ক্যাচও কেউ ছাড়ে!

ওপেনার তানজিদ হাসানের সঙ্গে বাকিটা সময় সহজ কায়দায় ব্যাট চালিয়ে তাওহীদ হৃদয় বাংলাদেশের সহজ টার্গেটটা আরো সহজ করে দেন। তৃতীয় উইকেট জুটিতে এই দুজনে মিলে যোগ করেন অপরাজিত ৬৯ রান।

টসে হেরে জিম্বাবুয়ের শুরুর ব্যাটিংটা হলো ভয়াবহ। পাওয়ার প্লেতেই হারালো তারা ৪ উইকেট। খানিকবাদে ব্যাটিংয়ের সেই চেহারা আরো দুর্বল, ৮ ওভারেই নেই ৪১ রানে ৭ উইকেট! আশঙ্কা জাগে তিন অংকের নিচেই গুটিয়ে যাচ্ছে সফরকারিদের ইনিংস। কিন্তু উইকেটকিপার ক্লাইভ মাদান্দে স্পিনার ওয়েলিংটন মাসাকাদজা অষ্টম উইকেট জুটিতে ৭৫ রান যোগ করে দলের ভাঙ্গাচোরা ইনিংস মেরামত করেন। ক্লাইভ ৩৯ বলে ৪৩ রান করেন। ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ২ ছক্কা ও ২ বাউন্ডারির সহায়তায় ৩৮ বলে ৩৪ রান করেন। ইনিংসের শেষ বলে মাসাকাদজা রান আউট হন।

জিম্বাবুয়ের ইনিংসের পুরোটাই জুড়েই ব্যর্থতা আর ব্যর্থতা। মাত্র চারজন ব্যাটার ডাবল ফিগারে পৌছান। দলের চার সেরা ব্যাটার ক্রেইগ আরভিন, শন উইলিয়ামস, অধিনায়ক সিকান্দার রাজা ও রায়ান বার্লÑ সবাই সমান রান করে আউট হন। চারজনই শূন্য!

সাইফুদ্দিন ও তাসকিন তিনটি করে উইকেট পান। মেহেদি হাসান মিরাজের ৪ ওভারে ১৬ রান খরচায় শিকার ২ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: জিম্বাবুয়ে ১২৪/১০ (২০ ওভারে, ক্লাইভ মাদান্দে ৪৩, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ৩৪, তাসকিন ৩/১৪, সাইফুদ্দিন ৩/১৫, মিরাজ ২/১৬)। বাংলাদেশ: ১২৬/২ (১৫.২ ওভারে, তানজিদ হাসান তামিম ৬৭*, শান্ত ২১, হৃদয় ৩৩*)। ফল: বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা: তাসকিন আহমেদ।

দ্বিতীয় ম্যাচ: ৫ মে, চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Crafted with by Softhab Inc © 2021
error: আমাদের এই সাইটের লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা যাবে না।