বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

জরুরী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি:
কুষ্টিয়া পোস্ট ডট কমের জন্য সারা দেশে জরুরী ভিত্তিতে বিভাগীয় প্রধান, জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা career@kushtiapost.com ইমেইল এ সিভি পাঠাতে পারেন।

কোটি টাকার সড়কে ২ মাসেই ধস

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর বাউফলের গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে এলজিইডির তত্ত্ববধানে প্রায় আড়াই কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত কাপের্টিং সড়কে দুই মাস না যেতেই ধস নেমেছে। এতে বন্ধ হয়ে পড়েছে যান চালাচল, বিপাকে পড়েছেন স্থানীয়রা।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) সরেজমিনে দেখা যায়, কালাইয়া ইউনিয়নে নির্মিত কাপের্টিং সড়কের পঞ্চায়েত বাড়ির সামনে প্রায় ৩ মিটার জুড়ে ধস নেমেছে। ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে লাল কাপড় টানিয়ে দিয়েছেন স্থানীয়রা। এতে যানচলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, নির্মাণকাজের শুরুতে নিন্মমানের নির্মাণসামগ্রী ব্যবহার করেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন। একাধিকবার তাদের বলা হলেও বিষয়টি আমলে নেয়া হয়নি। নির্মাণকাজে অনিয়ম হওয়ার কারণেই সড়কটিতে ধস নেমেছে।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মো. আলতাফ হোসেন বলেন, সড়ক নির্মাণকাজের গুণগত মান খারাপ হওয়ার কারণে দুই মাস না যেতেই ধস নেমছে। বিষয়টি ঠিকাদার ও সংশ্লিষ্ট দফতরকে একাধিকবার অবহিত করা হলেও তারা কর্ণপাত করেনি।

এদিকে, নির্মিত সড়ক সংক্রান্ত তথ্যের জন্য উপজেলা এলজিইডি অফিসে যোগাযোগ করা হলেও সাংবাদিকদের কোনো তথ্য প্রদান করেননি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, ২০২০-২১ অর্থ বছরে পটুয়াখালীর মের্সাস সেলিম স্টোর নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সড়কটি নির্মাণের কার্যাদেশ পায়। ২ কিলোমিটার কার্পেটিং সড়ক নির্মাণে ব্যয় হয় প্রায় আড়াই কোটি টাকা।

এ বিষয়ে মের্সাস সেলিম স্টোরের সত্বাধিকারী মো. সেলিম ওরফে মুদ্দার সেলিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সড়ক ধসে পড়লে ঠিকাদারের কি দোষ।

উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মো. সুলতান হোসেন বলেন, ঠিকাদারের সাথে আলাপ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Crafted with by Softhab Inc © 2021
error: আমাদের এই সাইটের লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা যাবে না।