বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৫ অপরাহ্ন

জরুরী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি:
কুষ্টিয়া পোস্ট ডট কমের জন্য সারা দেশে জরুরী ভিত্তিতে বিভাগীয় প্রধান, জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা career@kushtiapost.com ইমেইল এ সিভি পাঠাতে পারেন।
সংবাদ শিরোনাম :
রোনালদোর গোলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে আল নাসর টিপু-প্রীতি হত্যা মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পিছাল জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ডিবেট অর্গানাইজেশনের নবীনবরণ ও বিতর্ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হলিউডে অভিষেক হচ্ছে ওবামাকন্যা মালিয়া পঞ্চগড়ে মানসিক ভারসাম্যহীন নারীর মরদেহ উদ্ধার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ: রাতে মাঠে নামছে রেনে-এসি মিলান প্রধানমন্ত্রীকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন রাজবাড়ীতে ওয়াজ মাহফিলে যাওয়ার পথে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা পাবনায় অটোরিকশা-প্রাইভেটকারের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৫ এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের অবসরভাতা দিতে সময় বেঁধে দিল হাইকোর্ট

ঘন কুয়াশায় বোরো বীজতলা নিয়ে শঙ্কায় চুয়াডাঙ্গার চাষিরা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

তীব্র শীত আর ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করে প্রতিদিন বোরো ধানের বীজতলা যত্ন ও পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন চুয়াডাঙ্গার চাষীরা। কিন্তু ঠান্ডা ও কুয়াশার কারণে চারার ক্ষতির শঙ্কা রয়েই গেছে চাষিদের মনে।

জেলা কৃষি অফিস সূত্রের তথ্য অনুযায়ী, ২০২৩-২৪ মৌসুমে ১ হাজার ২৮৫ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের বীজতলা প্রস্তুত করা হয়েছে। আর ৩৪ হাজার ৮০০ হেক্টর জমিতে ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।

তবে ঠান্ডা ও ঘন কুয়াশার কারণে বীজতলার ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। চারা হলুদ রঙের হয়ে যাচ্ছে। এতে ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়া নিয়েও শঙ্কা রয়েছে। দুশ্চিন্তা দেখা গেছে কৃষকদের মধ্যেও।

তীব্র ঠান্ডা আর কুয়াশার মধ্যে কৃষকদের বীজতলা যেন ভালো থাকে সেই ব্যাপারে কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

কৃষক রফিকুল ইসলাম বলেন, এবার বোরো বীজতলা তৈরিতে খরচ অনেক বেশি। তাই বীজতলায় ক্ষতি হয়ে গেলে চারা রোপণের সময় অনেকটা দুর্ভোগে পড়বো। বীজতলায় ক্ষতি এড়াতে চারার যত্ন পরিচর্যা করছি।

আব্দুল হাই নামে আরেক চাষি বলেন, ঘন কুয়াশার কারণে বীজতলায় ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পাতা হলুদ রঙের হয়ে গেছে । ফলে ধানের যে লক্ষ্যমাত্রা তা উঠবে কি না তা নিয়ে পড়েছি দুশ্চিন্তায় আছি।

ধান চাষি আব্দুল লতিফ বলেন, এ মৌসুমে বীজের দাম বেশি তাই বীজতলা তৈরির খরচও বেশি। বীজতলায় কাঙ্ক্ষিত চারা উৎপাদন না হলে বাইরে থেকে চারা আনতে হবে। এতে ধান উৎপাদনের খরচ বেড়ে যাবে।

জানতে চাইলে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা কৃষি অফিসার আফরিন বিনতে আজিজ বলেন, প্রতিবারই বীজতলায় কিছুটা ক্ষতি করে কুয়াশা। এবার কৃষকদের বীজতলা ঠিক রাখতে নানা পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। চারা ঠিক রাখার জন্য যা যা করণীয় কৃষকরা যদি তা সঠিক ভাবে করে তাহলে চারার কোনো ক্ষতি হবে না। ফলে বোরো ধান উৎপাদনে কাঙ্খিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Crafted with by Softhab Inc © 2021
error: আমাদের এই সাইটের লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা যাবে না।